আরব আমিরাতের বিপক্ষে বড় জয় ভারতের

0
339

বড় জয় দিয়েই এশিয়া কাপে নিজেদের লিগ পর্ব শেষ করল ভারত। আরব আমিরারে বিপক্ষে আজ ৯ উইকেটের বিশাল জয় পেয়েছে ভারত। ফলে এশিয়া কাপের লিগ পর্বে একমাত্র দল হিসেবে চারটি ম্যাচেই জিতেছে ধোনির দল। বাংলাদেশকে হারিয়ে এশিয়া কাপের শুরু করেছিল ভারত। পরের ম্যাচে পাকিস্তানকে হারানোর পর শ্রীলংকার বিপক্ষে জয় পায় দলটি। ফলে টানা তিন জয়ে ভারত প্রথম দল হিসেবে এশিয়া কাপের ফাইনাল নিশ্চিত করে। অপর দিকে টানা তিন ম্যাচে হেরে আগেই ফাইনালে খেলার সুযোগ হারায় আরব আমিরাত। শেষ ম্যাচেও ভারতের বিপক্ষে জয়ের স্বপ্ন দেখেনি দলটি। কারণ নিয়ম রক্ষার জন্যই ভারতের বিপক্ষে নামতে হয় দলটিকে। আর ভারতের কাছে হেরে টানা চার পরাজয় মেনে নিতে হয়েছে প্রথম বার এশিয়া কাপে খেলার সুযোগ পাওয়া দলটিকে।
জয়ের জন্য ভারতের সামনে টার্গেট ছিল ৮২ রান। টার্গেটটা অনেক সহজই ছিল ভারতের জন্য। তবে ব্যাট করতে নেমে আরব আমিরাতের বোলারদের সামনে সাবধানেই ব্যাট চালিয়েছে ফেভারিট ভারত। দু-ওপেনার রোহিত শর্মা আর শিখর ধাওয়ান মিলে দলকে ভালোই এগিয়ে নিচ্ছিল। ১০ উইকেটেই জয় পেতে পারত ভারত। তবে দলীয় ৪৩ রানে রোহিত শর্মাকে আউট করে ওপেনিং জুটির ভাঙ্গন ধরায় কাদির আহমেদ। কাদিরের বলে মোহাম্মদ নাভেদের হাতে ক্যাচ দেয়ার আগে ওপেনার রোহিত শর্মা করেন ৩৯ রান। ২৬ বলে ৭ চার আর এক ছক্কায় সাজানো ছিল রোহিতের ৩৯ রানের ইনিংসটি। রোহিত আউট হলেও ওয়ান ডাউনে ব্যাট করতে নেমে ধাওয়ানের সাথে জুটি করে দলকে জয়ী করেই মাঠ ছাড়েন যুবরাজ সিং। কারণ এই জুটিই দলকে নিয়ে যায় টার্গেট ৮২ রানের। জয়ের জন্য ভারতে খেলতে হয়েছে মাত্র ১০.১ ওভার। আর হারাতে হয়েছে এক উইকেট। ফলে ৯ উইকেটে জয় পায় ভারত। ধাওয়ান ২০ বলে ১৬ রানে আর যুবরাজ সিং ১৪ বলে ২৫ রানে অপরাজিত ছিলেন।
এর আগে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে আরব আমিরাত ৯ উইকেটে করে ৮১ রান। দলের পক্ষে মাত্র দুজন ব্যাটসম্যান ডাবল ফিগারে রান করতে পেরেছে। বাকি সবার স্কোর ছিল একক ফিগারেই। ফলে শত রানের আগেই থেমে যায় আরব আামিরাতে স্কোর। আর ভারত জয়ের জন্য পায় মাত্র ৮২ রানের টার্গেট। ব্যাট করতে নেমে দলীয় প্রথম রানেই আরব আমিরাত হারায় প্রথম উইকেট। ওপেনার স্বপ্নিল পাতিল মাত্র এক রান করে আউট হওয়ার পর দলীয় ২ রানে দলটি হারায় দ্বিতীয় উইকেট। এবার বিদায় নেন ওয়ান ডাউনে ব্যাট ব্যাট করতে নামা মোহাম্মদ শাহজাদ। তবে আউট হওয়ার আগে নামে পাশে কোন রানই যোগ করতে পারেননি তিনি। প্রথম দু’টি উইকেটই নেন বোমরা। দলীয় ২৫ রানে আমিরাত হারায় ওপেনার রোহান মুস্তাফাকে। তবে পান্ডের বলে আউট হওয়ার আগে এই ওপেনার করেন ১১ রান। দলের এই ব্যাটিং বিপর্যয়ে হাল ধরার চেষ্টা করেছেন সায়মান আনোয়ার। কারণ তার ৪৩ রানের উপর নির্ভর করেই আরব আমিরাত ৮১ রানের স্কোর গড়তে পেরেছে। চতুর্থ উইকেট জুটিতে মোহাম্মদ ওসমানকে নিয়ে আনোয়ার দলকে ৫১ রানে পৌঁছে দেয়ার পর আউট হন ওসমান। ৯ রানে ওসমান আউট হলেও শক্ত হাতে একাই ব্যাট চালিয়েছেন আনোয়ার। দলের পক্ষে ব্যাট করতে নেমে তাকে কোন ব্যাটসম্যানই সাপোর্ট দিতে পারেনি। ফলে এক দিকে আনোয়ার ব্যাট চালালেও অন্য প্রান্তে একের পর এক উইকেট পড়েছে নিয়মিত বিরতিতে। ফলে ৮১ রানেই আটকে যায় আমিরাত। সায়মন আনোয়ার রান আউট হওয়ার আগে ৪৮ বলে তিন চার আর এক ছক্কায় সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন। ভারতের পক্ষে ভুবেনশ্বর কুমার নেন দুই উইকেট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here