জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গ্রহণে কনডম ব্যবহারে আগ্রহ হারায় টিনএজাররা

0
518

আমেরিকার এক গবেষণায় বলা হয়েছে, যে সকল টিনএজার  অন্যান্য প্রচলিত জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি গ্রহণ করেন, তাদের মধ্যে কনডম ব্যবহারের প্রবণতা অনেক কম থাকে। এমনকি জন্মবিরতিকরণ পিল গ্রহণকারী নারীদের চেয়েও তারা কনডমের প্রতি উদাসীন থাকেন। আটলান্টার সেন্টারস ফর ডিজিস কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের গবেষক রিলে স্টেইনার জানান, নারীদের কনডম ব্যবহারের প্রবণতা জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতির ওপর অনেকটা নির্ভর করে। জরায়ুতে এসব যন্ত্র প্রতিস্থাপনে অনাকাঙ্ক্ষিত গর্ভধারণ বন্ধ করা সম্ভব। দ্য আমেরিকান কলেজ অব অবসটেট্রিসিয়ানস অ্যান্ড গাইনেকোলজিস্ট (এসিওজি) থেকে বলা হয়, জন্মবিরতিকরণ যন্ত্রগুলো দীর্ঘমেয়াদে গর্ভধারণ প্রতিরোধ করে। একে বলা হয় লং-অ্যাকটিং রিভারসেবল কন্ট্রাসপেশন (এলএআরসি)। এটাই টিনএজারদের জন্যে সঠিক পদ্ধতি হতে পারে। এসিওজি জানায়, প্রতি ১০০ জন টিনএজারদের মধ্যে ৬-৯ জন অনাকাঙ্ক্ষিত গর্ভধারণ করেন। নতুন এ গবেষণায় বলা হয়, ২০১৩ সালের এক গবেষণায় আমেরিকার হাই স্কুলের শিক্ষার্থীদের গর্ভধারণ নিয়ে জরিপ চালনা হয়। জরিপের ২ হাজার ২৮৮ জন টিনএজারের মধ্যে ২ শতাংশ এলএআরসি ব্যবহার করেন। আর ২২ শতাংশ জন্মবিরতিকরণ পিল গ্রহণ করেন। ৪১ শতাংশ কনডম ব্যবহার করেন। ১২ শতাংশ অন্যান্য পদ্ধতি ব্যবহার করে থাকেন। আবার ২ শতাংশ কোন পদ্ধতি ব্যবহার করেন তা নিজেরাও জানেন না। স্টেইনার বলেন, আসলে টিনএজাররা এলএআরসি পদ্ধতি ব্যবহারের পর আবার বাড়তি নিরাপত্তার জন্যে কনডমের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন না। আবার যারা এলএআরসি পদ্ধতির প্রস্তাব দিয়ে থাকেন, তারাও কনডম প্রয়োজন নেই বলেই আস্বস্ত করে থাকেন। অথচ কনডম ব্যবহারের প্রয়োজনীয়তাকে উপেক্ষা করা যায় না।   আরেক গবেষক ড. জুলিয়া পটার জানান, এ গবেষণার মূল শিক্ষাটি হলো, কম বয়সী তরুণিতের জন্মবিরতিকরণ পদ্ধতি সম্পর্কে সঠিক ধারণা দিতে হবে। সূত্র : ফক্স নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here