দৌলতপুরে নির্বাচন পরবর্তী সহিংতায় নারী ও শিশুসহ আহত-৫৮

0
328

কুষ্টিয়া প্রতিনিধিঃ দ্বিতীয় দফার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে অব্যাহত রয়েছে।
এ উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের মধ্যে অন্ততঃ ৮টি ইউনিয়নে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। সহিসংতায় বাড়ি-ঘর ভাংচুরের পাশাপাশি গবাদি পশু ও অর্থ সম্পদ লুট করা হয়েছে। আর এসব ঘটনায় গত তিন দিনে আহত হয়ে নারী ও শিশুসহ শুধুমাত্র দৌলতপুর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে ৫৮জন। তবে সহিংতার এ ঘটনা তেমন উল্লেখযোগ্য না বলে পুলিশের দাবি।
বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দফার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ নির্বাচনে দৌলতপুরে ১৪টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। ভোট গ্রহন শেষে নির্বাচনে পরজিত প্রার্থীরা হয়ে উঠে বেপরোয়া। তারা প্রতিপক্ষ বিজয়ী প্রার্থীদের ওপর হামলা করে। আবার হামলার শিকার হোন পরজিত প্রার্থী ও তার সমর্থকরা বিজয়ী প্রার্থীর সমর্থকদের দ্বারা। বাড়ি-ঘর ভাংচুরের পাশাপাশি লুট করা হয় গবাদি পশু ও অর্থ-সম্পদ।
উপজেলার ১৪ ইউনিয়নের মধ্যে মরিচা, আড়িয়া, মথুরাপুর, বোয়ালিয়া, পিয়ারপুর, আদাবাড়িয়া ও চিলমারীসহ অন্তত ৮টি ইউনিয়নে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে।
এদিকে নির্বাচনী সহিংসতার হামলায় আহত হয়ে শুধুমাত্র দৌলতপুর হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে তুজাম, সামসু প্রধান, আহমদ প্রধান, শাহ আলম, রমজান আলী, সাইফুল, জালাল উদ্দিন, মনির গাজী, লাচেন আলী, মিন্টু গাজী, নজের আলী, গোলাম সরোয়ার, ইয়ারুল ইসলাম, মুক্তার মন্ডল, শহিদুল ইসলাম, আব্দুল বারী, নাজমুল, হযরত আলী, রিনা আক্তার, আলতাবানু, শেফালি খাতুন, শিশু সাইম, শফিকুল, তপন, সেন্টু ও শাহাবুলসহ অন্তত ৫৮ জন।
তবে শান্তিপূর্ন ভোট গ্রহনের পাশপাশি এসব সহিংসতা তেমন উল্লেখযাগ্য না বলে দাবি করেছেন দৌলতপুর থানার ওসি শহিদুল ইসলাম শাহীন। তিনি জানান, তেমন উল্লেখযোগ্য সহিংতার ঘটনা ঘটেনি যা ঘটেছে তা নিয়ন্ত্রন ও নিরসন করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here