তদন্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে খালেদার আবেদন খারিজ

0
232

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় তদন্ত কর্মকর্তা হারুন-অর রশিদের নিয়োগের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে মামলার অন্যতম আসামি খালেদা জিয়ার দায়ের করা রিট খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি মাহমুদুল হকের সমন্বয়ে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চ আজ বৃহস্পতিবার আবেদনটি উত্থাপিত হয়নি মর্মে খারিজ করে দেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন উত্থাপন করে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় ৯ মার্চ খালেদার পক্ষে রিটটি দায়ের করেন তার আইনজীবী মাহবুব উদ্দিন খোকন। পরে ২৩ ও ২৪ তারিখে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনের ব্যস্ততা দেখিয়ে সময় চান। পরে আদালত সময় আবেদন মঞ্জুর করেন। সেই আবেদনের ওপর শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন হাইকোর্ট। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা এ মামলায় তদন্তের দায়িত্ব পান সংস্থাটির উপপরিচালক হারুন-অর রশিদ। তার নিয়োগপত্রে স্বাক্ষর করেন আরেক উপপরিচালক আকরাম হোসেন। মামলা বাতিলের আবেদনে বলা হয়, দুদকের তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ দেবে কমিশন। আর কমিশন বলতে তিন কমিশনারকে বোঝায়। অতএব হারুন-অর রশিদের নিয়োগ আইনসম্মত হয়নি। তাই তদন্ত কর্মকর্তার নিয়োগ অবৈধ ঘোষণার পাশাপাশি মামলা বাতিল চাওয়া হয়েছিল। ২০১০ সালের ৮ আগস্ট জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে তিন কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা লেনদেনের অভিযোগ এনে খালেদা জিয়াসহ চারজনের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় মামলা করে দুদক। মামলার অপর আসামিরা হলেন : খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী, হারিছের তৎকালীন সহকারী একান্ত সচিব ও বিআইডাব্লিউটিএর নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান। মামলাটি বর্তমানে নিম্ন আদালতে সাক্ষ্যগ্রহণ পর্যায়ে আছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here