ইন্দো-বাংলা বাণিজ্য সম্পর্ক আরো বেশি জোরদার হবে বলে অভিমত

0
394

রাজশাহীতে এক আলোচনায় বক্তারা আশা প্রকাশ করেন, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বিদ্যমান দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যিক সম্পর্ক দুটি দেশের মাধ্যে উন্নয়ন ও কল্যাণকে আরো বেশি বেগবান করবে।
এ সময় তারা বলেন, প্রতিবেশি দুটি দেশের মাঝে কৌশলগত, অর্থনৈতিক ও ভৌগলিকভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং বহুল পরিচিত সম্ভাবনাময় অর্থনৈতিক সম্পর্ক।
গতকাল সোমবার রাজশাহী চেম্বারস অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (আরসিসিআই)’র কনফারেন্স হলে ‘ইমপ্রুভিং অব বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া ট্রেড রিলেশন’ শীর্ষক মিটিংয়ে এ সকল মন্তব্য করা হয়।
আরসিসিআ’র সভাপতি মো. মুনিরুজ্জামানের সভাপতিত্বে মিটিংয়ে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাজশাহীতে অবস্থানরত ভারতের সহকারী হাইকমিশনার অভিজিৎ চট্টোপাধ্যায়। বিশেষ অতিথি হিসেবে মিটিংয়ে বক্তব্য রাখেন, আক্তার জাহান (এমপি), কাস্টমস্, এক্সিস ও ভ্যাটের অতিরিক্ত কমিশনার মোয়জ্জেম হোসেন এবং বাংলাদেশ সিল্ক ইন্ডাস্ট্রিজ মালিক সংগঠনের সভাপতি লিয়াকত আলী।
মিটিংয়ে অভিজিৎ চট্টোপাধ্যায় বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের মাঝে যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে, পৃখিবীর কোনো শক্তি নেই যে তা ভাঙতে পারে। দ্বিপাক্ষিক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের মাধ্যমে ইতিমধ্যে ছিটমহল সমস্যার সমাধান হয়েছে।
তিনি বলেন, বিদ্যমান ভিসা সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান শিঘ্রই করা হচ্ছে। বাণিজ্য সংক্রান্ত সকল সমস্যা দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য প্রয়োজনীয় ও কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। বিশেষ করে সোনামসজিদ সীমান্তে সমস্য দ্রুত সমাধান করা হবে।
সংসদ সদস্য আক্তার জাহান এ সময় বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল ও ভুটানসহ এ অঞ্চলে উল্লেখযোগ্য ও টেকসই উন্নয়নে যোগাযোগ আরো বেশি উন্নিত করার আহ্বান জানান।
তিনি বাংলাদেশ ও প্রতিবেশি দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির জন্য দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ও আঞ্চলিক যোগাযোগ উন্নয়নের প্রয়োজন ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
আক্তার জাহান বলেন, এ অঞ্চলের স্থিতিশীলতা ও শান্তির জন্য সার্ক দেশগুলোর মানুষের পারষ্পরিক বোঝাপড়ার উন্নিয়নের ওপর জোড় দেওয়া উচিত। শুধু তাই নয়, পর্যটন, সাংস্কৃতি ও খেলাধুলাসহ অন্যান্য ক্ষেত্রেও সম্পর্ক উন্নয়ন করা যেতে পারে বলে বলে তিনি বলেন।
শুধু তাই নয় এ অঞ্চলের মানুষের কল্যাণে বাংলাদেশ, নেপাল, ভুটান ও ভারতের মাঝে শুধু আকাশপথ ছাড়া সড়ক ও রেল পথেও যোগযোগ ব্যবস্থার উন্নিত করা উচিত।
আরসিসিআই এর সভাপতি মো. মনিরুজ্জামান বলেন, বাংলাদেশ-ভারতের সম্পর্ক অত্যন্ত আন্তরিক ও দীর্ঘস্থায়ী উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশের মানুষের জন্য ভিসা পাওয়ার পদ্ধতি আরো বেশি সহজ করা উচিত। এমনকি চিকিৎসা ও অন্যান্য জরুরি প্রয়োজনে ভিসা যেন একদিনের মাধ্যেই পাওয়া যায় সে ব্যবস্থা করা উচিত।
মিটিংয়ে আরসিসিআই পরিচালক ফরিদ উদ্দিন, মাসুদুর রহমান, এসএম ইহসান এবং সিকান্দার আলী বক্তব্য রাখেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here