৯/১১ ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্র-সৌদি সম্পর্কে ভাঙনের সুর

0
289

যুক্তরাষ্ট্রের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে [টুইন টাওয়ার] ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর সন্ত্রাসী হামলায় সৌদি আরবের ভূমিকাসংক্রান্ত একটি বিল যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসে পাস হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বিলটি পাস হলে মার্কিন আদালত সৌদিকে উক্ত ঘটনার জন্য দায়ী করে যুক্তরাষ্ট্রে থাকা দেশটির সমস্ত সম্পদ বাজেয়াপ্ত করতে পারে। তাই বিলটি নিয়ে মার্কিন প্রশাসন ও কংগ্রেসের কর্মকর্তাদের অর্থনৈতিক ও কূটনীতিক সম্পর্কে নেতিবাচক প্রভাব পড়ার হুমকি দিয়েছে সৌদি আরব। টুইন টাওয়ার হামলাসংক্রান্ত বিলটি পাস হলে যুক্তরাষ্ট্রে থাকা সৌদির ৭৫০ বিলিয়ন ডলারের সমপরিমাণ সম্পদ ঝুঁকির মুখে পড়ার আগেই তা বিক্রির হুমকি দিয়েছে দেশটি। গত মাসে ওয়াশিংটন সফরে সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আদেল আল জুবায়ের ব্যক্তিগতভাবে তার দেশের এমন বার্তা ওবামা প্রশাসন ও কংগ্রেস সদস্যদের কাছে পৌঁছে দেন। তবে ওবামা প্রশাসন বিলটি যাতে কংগ্রেসে পাস না হতে পারে সেজন্য জোরালো লবিং করে যাচ্ছে। খবর নিউইযর্ক টাইমস’র

৯/১১ সংক্রান্ত বিলটির পাস হওয়া ঠেকাতে ওবামা প্রশাসনের তরফে কংগ্রেসের সদস্যদেরকে লবিং করা হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা ও কংগ্রেসে উভয় দলের সহযোগীরা জানিয়েছেন। কংগ্রেসের সদস্য এবং মার্কিন পররাষ্ট্রদফতর ও পেন্টাগনের কর্মকর্তাদের মধ্যকার সাম্প্রতিক বৈঠকে সৌদি আরবের হুমকি নিয়ে জোরালো আলোচনা হয়েছে বলেও জানান তারা। বিলটি পাস হলে সৌদি ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার কূটনীতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্কে যে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে এ ব্যাপারেও কংগ্রেসের সিনেটরদের সতর্ক করে দেন তারা।

এদিকে, আগামী বুধবার সৌদি আরব সফরে আসছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। এ সফরে তিনি সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ ও দেশটির অন্যান্য শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। তবে তাদের মধ্যকার আলোচ্যসূচিতে ৯/১১ বিল সংক্রান্ত ইস্যু থাকবে কিনা তা পরিস্কার নয়।  এ বিষয়ে ওয়াশিংটনস্থ সৌদি দূতাবাসের মুখপাত্র মন্তব্য করতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

অপরদিকে, সৌদি সরকার দীর্ঘদিন ধরেই টুইন টাওয়ার হামলার পরিকল্পনার সঙ্গে তাদের সম্পৃক্ততার কথা অস্বীকার করছে। এমনকি ৯/১১ ঘটনার প্রেক্ষিতে গঠিত কমিশনও এ ঘটনার সঙ্গে প্রতিষ্ঠান হিসেবে সেীদি সরকারের সংশ্লিষ্টতা বা সৌদি কর্মকর্তাদের ব্যক্তিগত অর্থায়নের কোনো প্রমাণ পায়নি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here