এশিয়া কাপে ভারতের বিশাল জয়ে রেকর্ডের ছড়াছড়ি

0
32

পাঁচ বছর পর এশিয়া কাপ জিতল ভারত। আর সেই আবার বিশাল ব্যবধানে। ভারতীয় পেসার মোহম্মদ সিরাজের আগুনে বোলিংয়ে মাত্র ৫০ রানে শেষ হয়ে যায় শ্রীলঙ্কার ইনিংস। জবাবে মাত্র ৬.১ ওভারেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারত। এই ম্যাচে একাধিক রেকর্ড হয়েছে। যার নেপথ্যে মোহম্মদ সিরাজ।

একঝলকে দেখে নেওয়া যাক-

১. মাত্র ১২ রানে ৬ উইকেট হারায় শ্রীলঙ্কা। আইসিসির পূর্ণ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম রানে এত উইকেট হারায় তারা।

২. নিজের ১০০২ বলে একদিনের ক্রিকেটে ৫০তম উইকেট তুলে নেন সিরাজ। যা ক্রিকেটের এই ফরম্যাটে দ্বিতীয় দ্রুততম। এই তালিকায় একনম্বরে অজন্তা মেন্ডিস। ৮৪৭ বলে এই মাইলস্টোনে পৌঁছান তিনি।

৩. প্রথম ১০ ওভারে ৬ উইকেট তুলে নেয় ভারত। একদিনের ক্রিকেটে ভারতের সর্বোচ্চ।

৪. মেন্ডিসের পর একমাত্র বোলার হিসেবে এশিয়া কাপের এই ফরম্যাটে ৬ উইকেট নিলেন সিরাজ।

৫. একদিনের ক্রিকেটে ভারতের বিরুদ্ধে সর্বনিম্ন স্কোর শ্রীলঙ্কার। একদিনের টুর্নামেন্টের ফাইনালের ইতিহাসেও সর্বনিম্ন রান।

৬. শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে একদিনের ক্রিকেটে সেরা গড় সিরাজের।

৭. এশিয়া কাপের একদিনের ফরম্যাটে এই নিয়ে মাত্র দ্বিতীয়বার ১০ উইকেট তুলে নিল পেসাররা। এর আগে চলতি এশিয়া কাপেই ভারতের বিরুদ্ধে ওয়াশআউট ম্যাচে এই নজির গড়ে পাকিস্তান।

৮. এশিয়ার দলগুলোর মধ্যে একদিনের ক্রিকেটে সবচেয়ে কম ওভারে অলআউট হওয়ার নজির শ্রীলঙ্কার।

৯. একদিনের আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের ফাইনালে পেসারদের মধ্যে সেরা বোলিং গড় সিরাজের। সার্বিকভাবে একনম্বরে রয়েছেন অনিল কুম্বলে। ১৯৯৩ হিরো কাপ ফাইনালে ১২ রানে ৬ উইকেট নেন তিনি।

১০. আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথম ভারতীয় হিসেবে এক ওভারে চার উইকেট তুলে নেন সিরাজ।

১১. পাঁচ উইকেট নিতে মাত্র ১৬ বল নেন সিরাজ। একদিনের ক্রিকেটে যা সবচেয়ে কম।

১২. শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে একদিনের ক্রিকেটে আশিস নেহরার পর একমাত্র বোলার হিসেবে ৬ উইকেট নিলেন সিরাজ।

১৩. দুইবার একদিনের টুর্নামেন্টের ফাইনাল ১০ উইকেটে জেতার নজির গড়ল ভারত। ১৯৯৮ শারজাতে জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে ১০ উইকেটে জিতেছিল ভারতীয় দল।

১৪. বলের হিসাবে (২৬৩) ভারতের সবচেয়ে বড় জয়। একদিনের ক্রিকেটের ফাইনালেও সবচেয়ে বড় ব্যবধানে জয়।

১৫. বলের হিসাবে ভারতের সবচেয়ে ছোট ম্যাচ। মাত্র ১২৯ বল খেলা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here